শনিবার ২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ রাত ৪:১৯

সখিপুরে স্ত্রীর স্বীকৃতি না পেয়ে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৩            

হারুন আর রশিদ, স্টাফ রিপোর্টারঃ

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর ইউনিয়নে স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে আনোয়ার নামে এক যুবকের বাড়িতে অনশন করছেন এক তরুণী। রোববার সন্ধ্যা থেকে সখিপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড কাঁচিকাটা কান্দি (পাতনা) এলাকার আনোয়ার লস্করের বাড়িতে অবস্থান নিয়ে অনশন শুরু করেছেন ওই তরুণী। স্ত্রীর মর্যাদা না পেলে আত্মহত্যার হুমকিও দিয়েছেন ওই তরুণী। সোমবার দুপুর পর্যন্ত ওই তরুণী সেখানেই অবস্থান করছেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। আনোয়ার লস্কর সখিপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড কাঁচিকাটা কান্দি এলাকার মরন আলি লস্করের ছেলে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়,দীর্ঘ আট বছর ধরে আনোয়ার লষ্করের সাথে মালতি আক্তারের প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিলো।

 

তবে মালতির বাবা মা অন্য এক ছেলের সাথে বিয়ে দেয়। কিছুদিন পরেই মালতিকে নিয়ে পালিয়ে যান আনোয়ার। পরে মালতির বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মালতির আগের স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য করেন আনোয়ার। এর পর দীর্ঘদিন একি সঙ্গে ঢাকার মিরপুরের টেকের বাড়িতে সংসার করেন।

এবিষয়ে মালতি আক্তার বলেন, আমাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে আমার সঙ্গে অসংখ্যবার মেলামেশা করেছেন। এরপর হঠাৎ আমার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন আনোয়ার। তাই স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবিতে আনোয়ারের বাড়িতে অনশন করছি, কিন্তু আনোয়ারের পরিবার আমার সঙ্গে খারাপ আচরণ করছেন। বিষয়টি এখন এলাকার অনেকেই জানে। আমার আর কোথাও ফিরে যাওয়ার পথ নেই। আনোয়ার স্ত্রী হিসেবে গ্রহণ না করলে আত্মহত্যা ছাড়া আমার কোনো পথ নেই বলে জানান ওই তরুণী।

মালতির মা মোকসেদা বেগম বলেন, আমার মেয়েটারে ৮ বছর যাবত শান্তিতে থাকতে দেয়নি আনোয়ার। আমার মেয়েকে ভাগাইয়া নিয়া আসে। পরে সেই দুঃখে আমার স্বামী টা স্টক করে মারা গেলো। এখন আমার মেয়ে মালতিকে ভুয়া ভাবে বিয়ে করে একসাথে থেকেও এখন অন্য মেয়েকে বিয়া করতাছে। আমি সখিপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি এবং ৯৯৯ এ কল দিয়েছি কিন্তু পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয়নি। আমি প্রাধানমন্ত্রীর কাছে আনোয়ারের বিচার চাই।

এ বিষয় প্রেমিক আনোয়ার লষ্করকে বাড়িতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। কথা হয় আনোয়ারের মা সহুরা (বুয়া) র’সাথে তিনি বলেন, মালতি বিয়ে না করে আমার ছেলের সাথে অবৈধ সম্পর্ক করলো কেন। আমার ছেলেকে বিয়ে দেয়ার আগে বললো না কেন।আমি আমার ঘরে মালতিকে বউ হিসাবে তুলব না।

সখিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান হাওলাদার বলেন, বিষয় টি আমি শুনেছি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

© Alright Reserved 2021, Hridoye Shariatpur