সোমবার ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ রাত ৯:৪৬

শরীয়তপুরে জায়গা নিয়ে বিরোধ: পাল্টাপাল্টি হামলা ভাংচুরের অভিযোগ

জুলাই ১৫, ২০২৩            

হৃদয়ে শরীয়তপুর ডেক্সঃ

শরীয়তপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বাড়ি ঘরে হামলা ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার রাতে ও শনিবার সকালে সদর উপজেলার তুলাসার ইউনিয়নের আড়িগাও গ্রামে এই হামলার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পালং মডেল থানার পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, আড়িগাও গ্রামের মৃত সিরাজউদ্দীন শেখের ছেলে হান্নান শেখের সাথে প্রতিবেশী হাতেম আলী শেখের ছেলে কুয়েত প্রবাসী আবু আলেম শেখের জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। এ বিষয়ে উভয় পক্ষই আদালতে মামলা দায়ের করেছে। মামলা দুটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। এরই মধ্যে শনিবার রাতে আবু আলেম শেখের পক্ষের লোকজন এক জায়গায় জড়ো হয়ে খিচুড়ি রান্না করে খেয়ে হান্নান শেখের বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট করে। হামলাকারীরা হান্নান শেখের একটি ঘর ভেঙে মাটির সাথে মিশিয়ে দেয়। নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায় বলে হান্নান শেখের বোন সোনিয়া আক্তার অভিযোগ করেন। শনিবার সকলে আবার হান্নান শেখের লোকজন আবু আলেম শেখের বাড়ি-ঘরে হামলা ও ভাংচুর করেছে বলে আবু আলেম শেখের স্ত্রী সুলতানা বেগম দাবি করেছে।

এসএ এবং বিআরএস অনুযায়ী হান্নান শেখের বাবা সিরাজউদ্দীন শেখের নামে কাগজপত্র রয়েছে। তবে কোন কাগজ দেখাতে পারেনি আবু আলেম শেখের পরিবার।

হান্নান শেখের বোন সোনিয়া আক্তার বলেন, আমি ও আমার মা শুধু বাড়িতে ছিলাম। বাড়তে আর কোন কেউ ছিলনা। আবু আলেম শেখের ভাড়া করা লোক রেজাউল কাজী, ভাই কদম আলী শেখ, চাচতো ভাই শাহ আলম শেখ, সাহেব আলী শেখ, শাহাবুদ্দিন শেখ লোকজন নিয়ে এক জায়গায় জড়ো হয়ে খিচুড়ি রান্না করে খাওয়ার পর আমাদের বাড়িতে হামলা করে। তারা আমাদের একটি ঘর সম্পূর্ণ ভেঙে গুড়িয়ে দেয় এবং আমাদের অন্য একটি ঘরে ভাংচুর ও লুটপাট করে। তখন আমি ও আমার মা ভয়ে চিৎকার করি। খবর পেয়ে আজ সকালে আমার ভাই হান্নান শেখ ঢাকা থেকে রওয়ানা দিয়েছে। আমরা এ ঘটনায় মামলা করবো।

আবু আলেম শেখের স্ত্রী সুলতানা বেগম বলেন, আমার স্বামী কুয়েত প্রবাসী। আমি ছোট একটা ছেলে নিয়ে বাড়িতে থাকি। তারা যে ঘর দাবি করছে সেটা আমাদের ঘর। রাতে তারাই আমাদের ঘর ভেঙে উল্টো আমাদের কথা বলতেছে। সকালেও হান্নান শেখ লোকজন আবু আমার বসত ঘরে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট করেছে। এখন আমার থাকার জায়গাও নাই। এ ঘটনায় আমরাও মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তার হোসেন বলেন, আড়িগাও গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পাল্টাপাল্টি হামলা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। ৯৯৯ এ নাম্বারে কল পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত করা হয়েছে এবং উভয় পক্ষকে কাগজপত্র নিয়ে থানায় আসতে বলা হয়েছিল। কিন্তু তারা কেউ থানায় আসেনি।

© Alright Reserved 2021, Hridoye Shariatpur