বৃহস্পতিবার ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ রাত ৪:৪৯

শরীয়তপুরের ৩০ গ্রামে রোজা শুরু

মার্চ ১১, ২০২৪            

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে প্রতি বছরের মতো এবারও শরীয়তপুরের প্রায় ৩০ গ্রামের ধর্মপ্রাণ মুসুল্লিরা আজ সোমবার থেকে রোজা রাখা শুরু করেছেন।

শরীয়তপুরের প্রায় ৩০ গ্রামের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা প্রায় ১০০ বছর ধরে একদিন আগেই তারাবির নামাজ পড়ে পবিত্র রোজা পালন শুরু করেন। এবছরও এসব গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ একদিন আগেই পবিত্র রোজা পালন করছেন বলে জানিয়েছে সুরেশ্বর পাক দরবার শরীফ।
রোববার (১০ মার্চ) রাতে শরীয়তপুরের সুরেশ্বর দরবার শরীফে পবিত্র রমজান উপলক্ষ্যে তারাবি নামাজের দুইটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাত ৮টায় অনুষ্ঠিত প্রথম জামাতের ইমামতি করেছেন মাওলানা জুলহাস উদ্দিন ও সাড়ে ৮টার দ্বিতীয় জামাতের ইমামতি করেছেন মাওলানা আব্দুল কাদির।

জানা যায়, সারা দেশে সুরেশ্বর পাক দরবার শরীফের কয়েক লাখ ভক্ত ও অনুরাগী ১৯২৮ সাল থেকে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর সঙ্গে মিল রেখে পবিত্র তারাবি, রোজা ও ঈদ উদযাপন করে। এরমধ্যে শরীয়তপুরের সুরেশ্বর, কেদারপুর, চাকধ্, চন্ডিপুরসহ ৩০ গ্রামের প্রায় ২০ হাজার ধর্মপ্রাণ মুসল্লি মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে পবিত্র রোজা পালন করেন। পবিত্র রোজা রাখার উদ্দেশ্যে মুসল্লিরা রোববার রাতে তারাবির নামাজ পড়ে ভোর রাতে সেহরী খান। সোমবার (১১ মার্চ) থেকে তারা রোজা পালন করে আবার একদিন আগেই পবিত্র ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিবেন।

সুরেশ্বর দরবার শরীফের ভক্ত রফিক মিয়া বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে পবিত্র রোজা রাখবো বলে সুরেশ্বর দরবারে এসেছেন তারাবির নামাজ আদায় করতে।

তিনি আরও বলেন, আমার বাবাও মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে রোজা রাখতেন। আমরা বংশ পরম্পরায় এভাবেই ধর্ম পালন করি। ইনশাআল্লাহ আমি সোমবার থেকে রোজা রাখব।
সুরেশ্বর দরবার শরীফের গদীনশীন পীর ও মুর্শিদ কেবলা শাহ মুজদ্দেদী সৈয়দ তৌহিদুল হোসাইন শাহিন নূরী বলেন, পবিত্র রোজা রাখার উদ্দেশ্যে সুরেশ্বর দরবার শরীফের দুইটি মসজিদে প্রায় ১০০ বছর ধরে তারাবির নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। পৃথিবীতে চাঁদ একটাই। সুতরাং পৃথিবীর যে কোনো প্রান্তে চাঁদ দেখা গেলেই আমরা তারাবি, রোজা ও ঈদ পালন করি। এবছর প্রথম ও দ্বিতীয় জামাত মিলে প্রায় ১ হাজার মুসল্লি নামাজ পড়তে এসেছেন। সুরেশ্বরসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা প্রায় ৩০ গ্রামের ২০ হাজার মুসল্লি সোমবার পবিত্র রোজা পালন করছেন। দরবার শরীফের গদীনশীন পীর শাহ সূফি সৈয়দ কামাল নূরী আল সুরেশ্বরী ও শাহ সূফি সৈয়দ বেলাল নূরী আল সুরেশ্বরী সবাইকে পবিত্র রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

© Alright Reserved 2021, Hridoye Shariatpur