বৃহস্পতিবার ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ সকাল ৮:২২

ডামুড্যায় একই রাতে চার বাড়িতে চুরি

ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৪            

শরীয়তপুরের ডামুড্যায় একই রাতে পাশাপাশি চার বাড়িতে চুরির ঘটনা ঘটেছে। চোরেরা স্বর্ণালঙ্কার, টাকার পাশাপাশি ফ্রিজে থাকা মাছ, মাংস ও দুধও চুরি করে নিয়ে যায়।

গত ৩ ফেব্রুয়ারি দিবাগত-রাতে ডামুড্যা উপজেলার দারুল আমান ইউনিয়নের উত্তর ডামুড্যা এলাকায় এ ঘটনা ঘটলেও বুধবার বিষয়টি জানাজানি হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সংঘবদ্ধ চোর চক্রটি ওই বাড়িগুলোতে কেউ না থাকার সুযোগে তালাবদ্ধ ঘর ও পাকা দালানের তালা ভেঙে এ ঘটনা ঘটায়। এ সময় নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার, মামলা, গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র নেওয়ার পাশাপাশি ফ্রিজে থাকা গরুর মাংস, মাছ ও দুধও নিয়ে যায়। বিশেষ করে চোর চক্র ফ্রিজ থেকে গরুর মাংস, মাছ ও দুধ নিয়ে যায়। এতে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

মোশাররফ খন্দকারের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম বলেন, ডাক্তার দেখাতে ছেলের সঙ্গে ঢাকা গিয়েছিলাম। প্রতিবেশীদের ফোনের মাধ্যমে জানতে পারি আমার বাসায় চুরি হয়েছে। বাড়িতে এসে দেখি আমর ঘরের তালা ভেঙে স্টিলের আলমিরা ভেঙ্গে কৌটার ভেতরে রাখা পঞ্চাশ হাজার টাকা, স্বর্ণের কানের দুল ও মূল্যবান মালামাল নিয়ে যায়। এমনকি আমার ফ্রিজে থাকা গরুর মাংস, মাছ ও দুধ নিয়ে যায়। তবে আমার জীবনে এ রকম ঘটনা আর শুনিনি।

মনোয়ারা বেগমের প্রতিবেশী মো. ইমান উদ্দিন খন্দকার বলেন, হঠাৎ করে আমাদের এলাকায় চুরির ঘটনা ঘটল। তবে চোরেরা টাকা পয়সা, স্বর্ণালংকার ও মালামাল চুরি করে। কিন্তু আজ-কাল দেখি তারা ফ্রিজ থেকে মাছ, মাংস ও দুধও চুরি করে নিয়ে যায়।

আমেরিকা প্রবাসী রহমতুল্লাহর ভাড়াটিয়া জাহানারা বেগম বলেন, এই বিল্ডিংয়ের প্রধান লোহার গেট ভেঙে পাঁচটি রুমের তালা ভেঙে আমার আলমিরা থেকে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়। পাশাপাশি আমার বাড়ির মালিকের ফ্ল্যাটের তালা ভেঙে মালামাল নিয়ে যায়।

হজ ট্রাভেল ব্যবসায়ী আব্দুস সাত্তার চাকলাদার বলেন, আমার অফিস ও ব্যবসা বাণিজ্য ঢাকাতে হওয়ায় গ্রামের বাড়িতে থাকা হয় না। তবে এলাকার গরিব-দুঃখী অসহায় পরিবারকে সহায়তা করার জন্য মাঝে মাঝে গ্রামের বাড়িতে আসি। সেই সুবাদে এ একতলা ভবনটি করেছি। চোরের দল আমার ফাঁকা বাড়িতে এসে তালা ভেঙে সব কিছু তছনছ করে গুরুত্বপূর্ণ নথি পত্র নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করতে থানায় গেলে কর্তব্যরত পুলিশ আমার অভিযোগপত্রটি গ্রহণ করেনি। আমি বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও জিডি নেয়নি। তারা আমাকে বলেন আপনি মামলা করেন। আমার বুঝে আসে না তিনি কেন জিডি না নিয়ে মামলা করতে বললেন!

আরেক ভবন মালিক আব্দুর রাজ্জাক বেপারির ভাড়াটিয়া পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের কর্মকর্তা তোফায়েল আহমেদ তপু বলেন, আমার বাসার তালা ভেঙ্গে একটি আইফোন, নগদ ৫০ হাজার টাকা ও একটি আইপি ক্যামেরা নিয়ে গেছে। আমি পুলিশকে জানালে তারা এসে আমার বাড়ি পরিদর্শন করে যায়।

স্থানীয়দের ধারণা, পরিকল্পিতভাবে চোরেরা এমন চুরির এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। যা বিগত দিনগুলোতে আর হয়নি বলে তারা উল্লেখ করেন। তাদের অধিকাংশের অভিযোগ, সড়ক বাতি ও সিসিটিভি না থাকায় চোরেরা এমন সুযোগ পেয়েছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মমিনুল হক মিন্টু সিকদার বলেন, আমার দারুল আমান ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের চারটি বাড়িতে চুরির ঘটনা শুনেছি। তবে আশ্চর্য হয়েছি যে, ইদানিং তারা টাকা পয়সা স্বর্ণালংকার চুরির সঙ্গে ফ্রিজে থাকা গরুর মাংস, মাছ ও দুধও চুরি করে নিয়ে গেছে। আমি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে বলব- আপনারা আমার এলাকায় একটু নজরদারি বাড়িয়ে দিন।

ডামুড্যা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এমারত হোসেন বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ঘটনার সময় বাড়ির মালিকরা কেউই বাড়িতে ছিলেন না। তবে ক্ষতিগ্রস্তরা মামলা করলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

© Alright Reserved 2021, Hridoye Shariatpur